কলকাতা

Sanatan Dinda: সনাতন দিন্দা ফেসবুক থেকে তুলে নিলেন তাঁর বিতর্কিত আঁকা 'দুর্গা'

কলকাতা, ১ সেপ্টেম্বর  : সনাতন দিন্দার আঁকা ‘দুর্গা’ নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়েছিল। অভিযোগ, এই আঁকার মাধ্যমে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের একাংশে আঘাত দেওয়া হয়েছে। বুধবার শেষ পর্যন্ত শিল্পী ফেসবুক থেকে তুলে নিলেন তাঁর বিতর্কিত আঁকা ‘দুর্গা’।

সনাতন দিন্দা এর আগে বহুবার পুজো মণ্ডপে মা দুর্গার মূর্তি তৈরি করে তাঁক লাগিয়ে দিয়েছেন দর্শকদের। এবার তিনিই এক মহিলার ছবি আকেন, যার পড়নে ছিল বোরখা এবং নিকাব। কিন্তু ক্যাপশনে তিনি লিখেছিলেন 'মা আসছেন'। তাতেই আগুনে ঘি পড়ে। তথাকথিত হিন্দু ভাবাবেগে আঘাত করা হচ্ছে দাবি করে তাঁকে নানারকম হুমকি দিতে থাকেন একদল মানুষ। এমনকি প্রকাশ্যে তাঁকে 'গনধোলাই' দেওয়া উচিৎ বলেও মন্তব্য করেন কেউ কেউ। বিজেপি-র রাজ্য সম্পাদক সঙ্ঘমিত্রা চৌধুরী ওই আঁকার ছবি মঙ্গলবার রাতে ফেসবুকে পোস্ট করে অভিযোগ করেছেন, “আজব বাঙালী....আজব হিন্দু বাঙালী। এরপর মায়ের মুখ বোরখাতে ঢেকে দেবেন বোধহয় এই সেকুলার শিল্পীরা। নবির ছবিতে একটা তিলক কেটে দেখান দেখি বুকে কত দম! ছেলেখেলা কি শুধু হিন্দু দেবদেবী নিয়ে? আসলে আপনারা হিন্দু অভিমানকে আঘাত করে পার পেয়ে যান বারবার। আর তাই সাহস বেড়েই চলেছে। শিল্পের নামে বজ্জাতি বন্ধ হোক।” অনেক প্রতিক্রিয়া আসে তাতে। প্রসেনজিৎ পাল লিখেছেন, “অবিলম্বে হিন্দু ধর্মে আঘাত হানার জন্য সনাতন দিন্দার উপরের মামলা দায়ের করা উচিত। এরা ধর্ম নিয়ে ব্যবসা শুরু করেছে। আর্টের নামে আঁতলামি এদের রোগ। প্রত্যেকবার পুজো শিবরাত্রি আসলেই এদের এইসব আঁতলামি করার প্রবণতা বেড়ে যায়। এখনই যদি আদালতের দ্বারস্থ হয়ে কোন ব্যবস্থা না নেওয়া হয় তাহলে ওদের সাহস দিন দিন আরো বেড়ে যাবে।“ সুশান্ত মন্ডল লেখেন, “ওকে বিশেষ শিক্ষা দেওয়া উচিত।“ সঞ্জয় চৌধুরী লেখেন, “বাংলাদেশেও কিন্তু কোনো হিন্দুর সাহস হয়না এটা করতে।“ সুস্মিতা বসু লেখেন, “কে এই বরাহ নন্দন?“ কল্যাণ ঘোষ লেখেন, “দিদি ওনার বিরুদ্ধে কিছু আইনি পথ নেওয়া যেতে পারে?“ শিখা দত্ত লেখেন, “মুখে জুতো মারতে হয়।“ প্রবুদ্ধ সাহা লেখেন, ১০০ শতাংশ ঠিক। এটা হিন্দুদের ওপর নোংড়া আক্রমণ“। মৃগাঙ্ক চ্যাটার্জি লিখেছেন, চূড়ান্ত লজ্জার। ছিঃ ছিঃ!“

দুর্গাপুজোর মাত্র একমাস আগেই এই বিতর্কের জল অনেকদুর গড়ায়। চিত্রশিল্পী সনাতন দিন্দার দাবি, সামাজিক মাধ্যমে এই ছবি ভাগ করার পর থেকেই তিনি নানা রকম হুমকি পাচ্ছিলেন। এমনকি তিনি হুমকি ফোন পেয়েছেন বলেও দাবি করলেন সনাতন দিন্দা। বুধবারই তিনি ফেসবুক থেকে ওই ছবি মুছে দিয়ে লেখেন হুমকির কথা। বিজেপি মহিলা মোর্চার সহ-সভাপতি কেয়া ঘোষ সামাজিক মাধ্যমে সরব হয়েছিলেন। তিনি টুইটারে লেখেন, 'হিজাবে মা দুর্গা … শিল্পী সনাতন দিন্দা। দিন্দা জানেন যে তাঁর এই নোংরামিতে অনেক বুদ্ধিজীবী বাঙালি তাকে সাহায্য করবে'। শিল্পীর দাবি, সাম্প্রদায়িক সম্প্রতির বার্তা দিতেই ওই ক্যাপশন দিয়েছিলেন। কিন্তু এর জন্য তাঁকে চরম হেনস্থার শিকার হতে হল। বুধবার সকালেই ফেসবুকে তিনি লিখেছেন, 'মা আসছেন .. আমার করা ছবিটা ফেসবুক থেকে ডিলিট করতে বাধ্য হলাম। আমাকে যেভাবে, যে ভাষায় আক্রমণ হতে হচ্ছে এবং বিভিন্ন হুমকি আসছে সেটা সামলানো মুশকিল হচ্ছে। আমার ছবি দেখে যাদের ভাবাবেগে আঘাত লেগেছে , তাঁদের কাছে ক্ষমাপ্রার্থী'।