কলকাতা

জল আর দুধে অম্লের হুশিয়ারি, ফের ধোঁয়াসা ঘেরা পোষ্ট সৌমিত্রের।

বেসুরো নেতাকে নিয়ে অস্বস্তিতে রাজ্য বিজেপি। মোদির মন্ত্রিসভায় দ্বিতীয় দফার মেয়াদে রদবদলের দিনেই বেসুরো হয়ে উঠেছিলেন বিজেপি লোকসভায় সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। মন্ত্রীসভায় নিজের স্থান না মেলায় ক্ষোভের সুর চড়িয়েছিলেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ ও শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে। একদিকে রাজীব তার উপর  নিয়ে সৌমিত্রকে নিয়ে ইতিমধ্যে বেশ বিড়ম্বনায় বঙ্গ বিজেপি। সম্প্রতি বিতর্কিত মন্তব্য ও ক্ষোভ উগরে দিয়ে শিরোনামে এসছিলেন সৌমিত্র। আর এবার ফেসবুকে লিখেছেন জল আর দুধের এক ধোঁয়াসা ঘেরা গল্প। তবে জল আর দুধের মধ্যে কাকে বার্তা দিয়েছেন তিনি? আর দুধের মধ্যে অম্লই বা কাকে বুঝিয়েছেন? ধোঁয়াশা পুরোটাই রাখলেন। তবে  অভিমান না কি ক্ষোভ? তা নিয়ে প্রশ্ন তৈরি হয়েছে রাজনৈতিক মহলে।

       গত কয়েকদিন সৌমিত্রের ফেসবুক লাইভ ঘীরে বিজেপির অন্তর্দ্বন্দ্ব প্রকাশ এসেছিল। এদিকে যেমন তিনি রাজ্য বিজেপির বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন অন্যদিকে তার এই বার্তা মোটেই ভাল চোখে দেখেননি রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব। রাজ্য বিজেপির যুব মোর্চার পদ থেকে সরানো হয় তাকে। ফেসবুকে এভাবে পোস্ট করা যে দলের রীতি নয় তা বুঝিয়ে দিয়েছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। কিন্তু তারপরও দলকে কার্যত বুড়ো আঙুল দেখিয়ে আবার সেই সোশ্যাল মিডিয়াতেই সরব  তিনি। শুক্রবার রাতে 'জল আর দুধের' গল্প বলতে আদতে কোন সমীকরণের কথা বলেছেন তিনি তা স্পষ্ট নয়। ফেসবুক পোস্টে তার বক্তব্য জল দুধের সঙ্গে মিশিয়ে নিজের স্বরূপ ত্যাগ করে আবার দুধ ফোঁটানো হলে বন্ধুত্বের খাতিরে জল আগে মরে যায় এমনটাই মন্তব্য করেছেন তিনি আবার পোস্ট এর শেষাংশে তার বক্তব্য একটু অম্ল মিশে গেলেই জল আর দুধ আলাদা হয়ে যায়। তার বার্তা বন্ধুত্বে অম্লত্ব আসতে দেবেন না, তবে কি দলের সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে মুখ খুললেন তিনি, নাকি দলকে হুশিয়ারি দিলেন অম্লতা আসলে দলের বিরুদ্ধে যাবেন, রাজনৈতিক মহলে ঘুরপাক খাচ্ছে এখন সেই সব  প্রশ্ন। বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ অবশ্য বলেন, যুবনেতা তো, এই ধরণের অর্বাচীন কাজ করাটা খুব স্বাভাবিক। বিজেপিতে এসেছেন বুঝতে সময় লাগছে। বুঝে যাবেন প্রথম প্রথম ছোটদের দোষ মাফ করেদিই আমরা।