রাজ্য

Anubrata Mondal : চার ঘণ্টা জেরার পর সিবিআইয়ের হাত থেকে ছাড়া পেলেন অনুব্রত মণ্ডল

কলকাতা, ১৯ মে : গরুপাচার-কাণ্ড থেকে ভোট পরবর্তী হিংসা— একাধিক বিষয়ে প্রায় চার ঘণ্টা জেরার পর সিবিআইয়ের হাত থেকে ছাড়া পেলেন অনুব্রত মণ্ডল।

জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গত ৬ এপ্রিল গরুপাচার-কাণ্ডে নিজাম প্যালেসে অনুব্রতকে তলব করেছিল সিবিআই। উল্লেখযোগ্য ভাবে ওই দিনই শারীরিক অসুস্থতার জন্য এসএসকেএম হাসপাতালের উডবার্ন ওয়ার্ডে ভর্তি হন তিনি। তখন তিনি জানিয়েছিলেন, সিবিআই চাইলে হাসপাতালে এসে তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে পারে। এই মর্মে তিনি চিঠিও দেন কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাকে। পরে হাসপাতাল থেকে ছুটির পরও সিবিআইকে তিনি চিঠি দিয়ে জানান, তাঁর বাড়িতে বা ভার্চুয়াল মাধ্যমে তিনি জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রাজি আছেন।

বীরভূম জেলা তৃণমূলের সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলকে সিবিআই তলব করলেও, অসুস্থতার কারণে বারবার হাজিরা এড়িয়েছেন তিনি। অবশেষে নিজাম প্যালেসে অনুব্রত হাজিরা দিতে পারেন বলে সূত্রের খবর ছিল। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টা নাগাদ নিজাম প্যালেসে হাজিরার জন্য আসার কথা জানিয়েছিলেন অনুব্রত। তার আগে তিনি কলকাতার চিনার পার্কের বাড়িতে চলে আসেন।

গত ২৫ এপ্রিল অনুব্রত সিবিআইকে চিঠি দিয়ে জানিয়ে ছিলেন যে, সিবিআই যদি তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদের প্রয়োজন মনে করে তা হলে ২১ মে-র পর তিনি সিবিআইয়ের কলকাতা অফিসে গিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য প্রস্তত। কিন্তু বার বার সিবিআইয়ের তলব এড়িয়ে এ বার নিজেই সিবিআইয়ের মুখোমুখি হওয়ার ইচ্ছে প্রকাশ করেন অনুব্রত।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে দশটা নাগাদ তাঁর পৌঁছনোর কথা ছিল নিজাম প্যালেসে। তার আগে চিনার পার্কের বাড়ি থেকে ঠিক সকাল সোয়া ন’টা নাগাদ রওনা হয় অনুব্রতর গাড়ি। সকাল ৯টা ৫০ মিনিটে নিজাম প্যালেসে পৌঁছলেন বীরভূমে তৃণমূল জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। সাড়ে দশটার মধ্যে আসার কথা ছিল তাঁর। সময়ের আগেই তিনি পৌঁছে যান। সহায়কদের হাত ধরে নিজাম প্যালেসের সিঁড়ি বেয়ে উপরে উঠতেও দেখা যায়। জেরার কথোপকথন অবশ্য কোনও পক্ষই প্রকাশ করেনি।